কিভাবে যে কোন কাজে সফল হবেন?সফলতার আসল রহস্য কি?


কিভাবে যে কোন কাজে সফল হবেন?সফলতার আসল রহস্য কি?

কিভাবে যে কোন কাজে সফল হবেন?সফলতার আসল রহস্য কি?

হেলো বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন?আসা করি অনেক ভালো আছেন?আপনাদের দোয়ায় আমি অনেক ভালো আছি।আজ আমরা যে কোন কাজে কি করে সফলতা পাওয়া যায় সেই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।
সবাই সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।
একটু হলে ও উপকার পাবেন।

চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

যে কোন কাজে সফল হবার হওয়ার দশটি গােপন সুত্রঃ

১ । নিজের দুর্বলতা সম্পর্কে জানুন।

সবার আগে আপনাকে খুজে বের করতে হবে,আপনার মধ্যে কি কি দূর্বলতা আছে,কোন কাজ করার আগে এটা জানা জরুরি।দরুন আপনি ব্যবসা করাত উদ্যোগ নিলেন।
কিন্তু আপনি গরিব মানুষ দেখলে একটু লস দিয়ে বিক্রি করে দেন।এটা হলো আপনার দূর্বল পয়েন্ট। এই রকম আরো কোন কোন দুর্বল পয়েন্ট আছে তা আপনাকে খুজে বের করতে হবে।নিজের ভালো দিক সবাই জানে।কিন্তু মন্দ দিক টা বের করা আসলে খুব কঠিন।
এই জন্য আপনাকে নিজের সঙ্গে এমন কাউকে রাখতে হবে যে নির্দিধায় তোমার ভালো মন্দ দুটোর দিক ধরিয়ে দিতে পারবে।আপনি যদি ভালো করে চিন্তা করেন তাহলে দেখবেন দুনিয়া জুরে যারাই সফল হয়েছে,উদ্দোক্তা হিসাবে তাদের সঙ্গে দ্বিতীয় কেউ ছিলেন।
সে তাকে লক্ষ অবিচল রাখতে সহায়তা করেছেন।

২ । কি পেতে চাও , কেন করছ কাজটা তা ঠিক করা ।

আপনি যে কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন,এই কাজটা কেন করতেছেন,কি পাবেন এই কাজ করে,আর এই কাজটা আপনি কেন choice করেছেন।এই সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা থাকা দরকার।একটা নিদিষ্ট লক্ষ ঠিক করে নিতে হবে প্রথমে।

৩ । নিজের উপর বিশ্বাস রাখা ।

কোন কাজ শুরু করার আগে নিচের প্রতি আস্তা রাখতে হবে,নিজের প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে।নিজে যা করছো সেটার উপর যদি নিজেরই আস্তা না থাকে।তাহলে অন্যরা কিভাবে তোমার উপর আস্তা রাখবে।নিজের উপর আস্তা না থাকলে আপনার সহ কর্মিরা ও আপনার উপর থেকে আস্তা তুলে নিবে।

৪ । নিজের কাজের প্রতি ভালােবাসা থাকতে হবে ।

যদি আপনার কাজের প্রতি আপনার ভালবাসা না থাকে তবে কখনই আপনি সফল হতে পারবেন না।আত্নবিশ্বাসী, ভালবাসা ও সাহজ এই ৩ টি সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ন একজন নতুন উদ্দোক্তার জন্য।

৫ । সাহস ছাড়া বড় কোন উদ্যোগ নেয়া সম্ভব নয় ।

সাহস প্রতিটা কাজের জন্য জরুরি, কোন কাজে সাহস ছাড়া এগিয়েছে  যেতে পারবেন না।
ভালো কাজে সাহস করে ঝুকি নিবেন।Risk না নিলে কখনো লাইফে এগিয়ে যেতে পারবেন না।নতুন দিনের সঙ্গে মিলেয়ে নতুন নতুন কাজে এগিয়ে যেতে হবে রিস্ক নিয়ে।

৬ । আশেপাশের মানুষ গুলাের সাথে খারাপ ব্যবহার করা যাবেনা ।

যদি আপনি কোন কাজে সফল হতে চান,তাহলে এই কথাটা সব সময় মাথায় রাখবেন।আপনার আশে পাশে মানুষের সঙ্গের কখনো খারাপ ব্যবহার করা যাবে না।
কোন কাজ করতে নামলে অনেকের অনেক কথা তোমার প্রচন্দ হবে না,তাই বলে রাগারাগি করবেন না।অনেকের অনেক প্রস্তাবে না বলতে হবে।যাই করো না কেন আশে পাশে মানু্ষের সাথে মার্জিত ব্যবহার করতে হবে।কাউকে না বললে ও তা সুন্দর করে বলতে হবে।

৭.বিকল্প কোন পরিকল্পনা ছাড়া কাজে নামা যাবে না।


প্রতিটা কাজ শুরু করার আগে তার বিকল্প রাস্তা বের করতে হবে।যদি কোন কাজে ভুল হয়ে যায়,তাহলে বিকল্প রাস্তা অনুসরণ করো।

৮ । সব সময় সব কিছু নিয়ে স্বাভাবিক চিন্তা করা ।

নিজের চিন্তা ভাবনাকে জটিল করে তুলনা কখনই,অন্যের কথা শুনে নিজের মনকে অন্য মনস্ক করো না,পাশে পাশে কে কি বললো এটা নিয়ে ভাব না,মানুষ তো বলবেই আপনাকে সামনে এগিয়ে যেতে দেখলে অনেক রকম কথা বলবে পিচিয়ে আনার জন্য।


৯ । মাথা খাটিয়ে কাজ করা , বল খাটিয়ে নয় ।

এর মানে হলো শুধু কাজে শক্তিশালী হলে হবে না,অযতা ঘন্টার পর ঘন্টা দিনের পর দিন ১৮ ঘন্টা ২০ ঘন্টা খেঠে নিচের ক্ষতি করো না,বরং সব চেয়ে কম কাঠোনি দিয়ে কোন কাজ কিভাবে করা যায় সেটা খুজে বের করুন।
বুদ্ধিমান মানুষ শক্তি দিয়ে নয়,বুদ্ধি দিয় কাজ করে।
সব সময় অপসি বসে মিটিং করতে হবে তা নয়।
যারা কাজ জানে তারা নিজের কাজটাকে খেলা দোলা হাসি ঠাট্টার মধ্যে ও কাজ বের করে নেয়।


১০ । জীবন টাকে উপভােগ করা ।

সব শেষ এবং সব চেয়ে গোপন সুত্রটি হলো, জিবনে যাই করো না কেনো,যেভাবে করো জীবনটাকে উপভোগ করো।প্রতিটা দিন থেকে প্রতিটা মূহুর্ত থেকে আনন্দ খুজে নিও।নিশ্চিত জিবনের সতভাগ সময় আনন্দ বের কর‍তে পারবে না।তাই বলে কখনো আসা ছেরে দিও না।
আনন্দ খুজে নিতে না পারো চেষ্টাটাতো অন্তত করো,মনে রেখ নতুন উদ্দোক্তাদের মাঝে মাত্র ১০ জন সফল হয়।
তুমি যদি তার মধ্যে একজন হতে পারো,তবে মন্দ কি তোমাকে আগাম অভিনন্দন।
আপনার জীবনকে সুন্দর করতে এই রকম গুরুত্বপূর্ণ কথা আমরা আপনাদের  Motivation  দেওয়ার জন্য বলে থাকি।যদি মেনে চলেন ইনশাআল্লাহ জিবনে এগিয়ে যেতে পারবেন।
সাথেই থাকুন,ধন্যবাদ।
আল্লাহ হাফিজ। 

Post a Comment

0 Comments