স্বার্থপর কেন হবেন! Be Selfish be happy

     Be Selfish Be Happy


কেউ বলবে না আপনাকে এই সত্য কথা কারন সত্যিটি শুনতে খারাপ লাগবে।
আজ আমি আপনাদের সত্য কথাটি বলতে চাই কারন আজ আপনি যদি এই সত্যটি বুজতে পারেন তাহলে জিবনে স্বার্থপর লোকের কারনে জিবনে আপসোস করবেন না।
সবার আগে একটি ছোট্ট গল্প শুনাবো।
এবং তার সাহায্যে আপনাদের বুঝানো চেষ্টা করবো।
একবার একটি ছোট মাছ তার মাকে বলে জলে কেন থাকাই ডাংয়াতে কেন নয়।
তখন তার মা বলে আমরা Fish তাই জলে থাকি।
ডাংয়াতে তো সবাই Selfish থাকে।
হতে পারে গল্পটি অনেক ছোট কিন্তু অর্থটি সত্য আমরা শিকার করি বা নাই করি এই পৃথিবীর বেশিভাগ লোক বা সবাই স্বার্থপর।
আমাদের মুখে মিষ্টি থাকে কিন্তু ভিতরে বিষ।
আমার অর্ধেক কথা শুনে এখনি কোন সিদ্ধান্ত নিবেন না।
তাই বলতে চাইছি সবার প্রথমে নিজেকে তারপর অন্যের উপকার করুন।
একি কথা প্লেনে ও বুঝানো হয়।খারাপ সময়ে প্রথমে নিজে অক্সিজেন মাক্স পরুন।তারপর অন্যের মাক্স লাগান।আমি বলছি না যে আপনি একেবারে স্বার্থপর হয়ে যান।কিন্তু এমনটা ও হবেন না অন্যের স্বার্থ পুরন করতে গিয়ে আপনি নিজেকে হারিয়ে ফেলেন।
সব থেকে ভালো হলো সময় থাকতে আপনার চারপাশের স্বার্থপর লোক গুলোকে চিনুন।
আপনার মনের কথা নয় কখনো কখনো ব্রেনের কথা ও শুনুন।এটা মনে রাখুন যে  আপনার সময় যদি এখন ভালো হয়।
লোক আপনার গুনগান করবে।
আর যদি সময় খারাপ হয় লোক আপনার খারাপ গুনগান করবে।সার্থ থাকলে সম্পর্ক করবে কাছে ও আসবে।আর যদি স্বার্থ থাকে না আপনি সাহায্য চান তাহলে এই লোক গুলি আপনাকে অযুহাত দেখাবে।
ফোনে শুনতে পাচ্ছি না বলে ফোন switch off হয়ে যাবে এটাই বাস্তব।
এই পৃথিবীতে বেশিভাগ লোক স্বার্থপর,চিন্তা সার্থপর,প্রশংসা স্বার্থপর,ভক্তি স্বার্থপর,সব কিছুর পিচনে কোন না কোন স্বার্থ থাকেই।
স্বার্থপর হওয়াটা কোন দোষের নয়।যখন লোক স্বার্থপর আপনি তখন সম্পর্ক কেবল মাত্র স্বার্থের জন্যই রাখুন।
তাহলে আপসোস করতে হবে না।
স্বার্থ এই শব্দটিকে আমরা খারাপ বলি,
একবার ভেবে বলুন তো যদি এই  স্বার্থ না থাকতো তাহলে কি কোন সম্পর্ক থাকতো।
হয়তো কোন সম্পর্কই তৈরি হত না।
মায়ের ভালবাসা, আর বাবার ভালবাসা ছারা এই পৃথিবীতে যত সম্পর্ক আছে সব স্বার্থের জন্য আর এটাই সত্য।
এছারা এই পৃথিবীতে শুধু মূল্য আছে টাকার।
সম্পর্ক প্রয়োজনের জন্য তৈরি হয়ে থাকে।
প্রয়োজন পরিবর্তন হলে সম্পর্ক ও পরিবর্তন হয়ে যায়।
বলতে পারেন স্বার্থের জন্যই সম্পর্কের জণ্ম হয়।
বর্তমান যুগে সব সময় হে বলার চাইতে স্বার্থপর হয়ে না বলাই বেশি ভালো।
মনে রাখবেন জংগলে সুজা গাছকে সবার আগে কাঠা হয়।তাই আপনাকে ও একটু বাকা হওয়া দরকার।
আমি এটা বলছি না স্বার্থপর হয়ে কাউকে ধোকা দিন।
কিন্তু এতটা স্বার্থপর অবশ্যই হন যাতে কেউ আপনাকে ধোকা না দিতে পারে।
এতটা স্বার্থপর হবেন না যে থাকে ব্যবহার করে তার ক্ষতি করবেন।
তবে এতটা স্বার্থপর অবশ্যই হবে যে কেউ তার স্বার্থের জন্য ব্যবহার করতে না পারে।
আপনার ক্ষতি না করতে পারে।
কখনো আসা করবেন না যে আপনি পরে গেলে কেউ আপনাকে উঠাবে।
নিজেই নিজেকে উঠাতে হবে।
পৃথীবিতে সব নিজের স্বার্থেই চলে।
তো বন্ধুরা এই সম্পর্কে আপনার মুল্যবান মতামত অবশ্যই কমেন্ট করে বলুন।
আর অবশ্যই শেয়ার করবেন আপনার বন্ধুদের মাঝে।
আল্লাহ হাফিজ সবাই ভালো থাকবেন।

Post a Comment

0 Comments