৪৮ ঘন্টা পর ভারতের এয়ার কমান্ড অভিনন্দন এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

৪৮ ঘন্টা পর ভারতের এয়ার কমান্ড অভিনন্দন এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন!

৪৮ ঘন্টা পর ভারতের এয়ার কমান্ড অভিনন্দন এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন! After 48 hours, the Indian Air Command Abhinandan return of his country


মঙ্গলবার দুপুরে পাকিস্তানের বিমানবন্দরে থাকার পর ভারতের বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন তার স্বদেশে ফিরে আসার জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি স্বাগত জানান। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি শুক্রবার তার আসন্ন প্রত্যাবর্তনের স্বাগত জানান।  " ব্যানার্জি তার টুইটার হ্যান্ডেল লিখেছেন এই বার্তাটি। বুধবার তুমুল  যুদ্ধের সময় তার প্রতিপক্ষ যোদ্ধা জেটকে তাড়া করে শত্রু বিমানটি গুলি করে ক্রাস করার পর নিজের যুদ্ধ বিমান  পাকিস্তানের ভেতরে গিয়ে ক্রাস হয়। কমান্ডার অভিনন্দনকে  গ্রেপ্তার করা হয় যখন তিনি প্যারাসুট নিয়ে মাটিতে নেমে আসেন তখনি। অভিনন্দন যখন পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর হাতে ধরা পড়লেন তখন তিনি জানতে চান কোথায় আছেন তিনি?

প্রত্যুত্তরে প্রতিপক্ষের পক্ষ থেকে তাকে জানানো হয় যে তিনি পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর হেফাজতে আছেন। মৃত্যু অনিবার্য যেনেও তখন নিজেকে সামলিয়ে তখন পাকিস্তান বাহিনীর প্রশ্নের উত্তর করছিলেন। যখন দেশের গুপন তত্ত্ব নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হয় তাকে তখন তিনি মৃত্যুকে ভয় না করে উত্তর দেন সরি এর বেশি কিছু আর বলতে পারবোনা। ২ দিন আটক থাকেন পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে। অবশেষে গত কাল পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রী সংসদে ঘোষণা করেন যে ভারতের এর সেনা প্রধানকে দেশে সুস্থ্য সাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে দিবেন তিনি। তার সেই দেয়া কথা আজকে তিনি পালন করলেন যার ফলে আজকে সন্ধার দিকে অভিন্দন স্বাভাবিক ভাবেই ভারতে আবারো নিজের পা রাখতে সক্ষম হলেন। 

ভারতীয় সেনা বাহিনী তাকে বর্ডার থেকে রিসিভ করে তার পর তাকে গাড়ি করে নিয়ে যায় বিমান বন্দরে এবং সেখান থেকে অভিন্দনকে বিশেষ ফ্লাইটে করে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। যা পর্যন্ত যানা যায় যে,,, দিল্লিতে নিয়ে অভিন্দনকে মেডিক্যাল টেস্ট করে দেখা হবে তিনি ফিট আছেন কি না?  তার উপর কেমন অত্যাচার করা হয়েছে এবং তাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর তার শরিরে কোন মাইক্রোচিপ ঢুকিয়ে রাখা হয়েছে কি না? এসব কিছু ভালোভাবে চ্যাকাপ করার পর তাকে আবারো প্রশাসন এর কাজে লাগিয়ে নেয়া হবে বলে যানা যায়।
এদিকে অভিন্দনকে রিসিভ করতে তার বাবা মা ও ওই সময় বর্ডারে অবস্থান নিয়েছিলেন বলেও যানা যায়। তাছাড়া তাকে রিসিব করার জন্য হাজার হাজার দেশপ্রেমিক জনতাও সেই সময়ে বর্ডারে জড় হয়েছিলেন এবং তাকে স্বাগতম জানিয়ে গ্রহন করেছিলেন। সবার থেকে জানা যায় অভিনন্দন হলো তাদের রিয়েল দেশপ্রেমিক রিয়েল হিরো। অভিনন্দন এর থেকে সকলের দেশপ্রেম এর শিক্ষা নেয়া উচিত বলেও সবাই মতপ্রকাশ করেন। সবাই বলেন এমন দেশপ্রেমিক রিয়েল হিরো আজীবন দেশের ইতিহাসে স্বরনীয় হয়ে থাকবে।

Post a Comment

0 Comments