অপরিচিত লোকের সাথে স্মার্টভাবে কথা বলার উপায়

অপরিচিত লোকের সাথে স্মার্টভাবে কথা বলার উপায়

অপরিচিত লোকের সাথে স্মার্টভাবে কথা বলার উপায়

আসছালামু আলাইকু? সবাই কেমন আছেন। আসা করি সবাই অনেক ভালো আছেন। আজকে আমি আমি আপনাদের বলব কিভাবে আপনি যে কোন অপরিচিত ব্যক্তির সাথে কথা বলবেন। এবং নিজেকে তার চোখে আরো আকর্ষণীয় করে তুলবে।

তো বন্ধুরা যখন আমাদের অপরিচিত কারো সাথে কথা বলতে হয়, তখন আমরা ভাবি কথা তো বলতে পারি,কিন্তু নিজের কথা কে আরো বেশি ইন্টারেস্টিং কিভাবে করবো, যার ফলে সবার আমাদের সাথে কথা বলতে ভালো লাগবে। এবং আমাদের ইম্প্রেশন আরো মজবুত হবে। তাই বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের কিছু টিপস দেবো।যা আপনাকে কথা বলার সময় মাথায় রাখতে হবে। হতে পারে এর মধ্যে কিছু কাজ আপনি অলরেডি করেন, আর কিছু বিষয় আপনি করেন না। তাই যে কাজ গুলো আপনি করেন না সে গুলোকে নিজের মধ্যে আনার চেষ্টা করুন। তারপরে দেখবেন আপনি অনেক ভাল ভাবে অন্যের সাথে কথা বলতে পারবেন। এবং আপনার পোজিশন আপনার টেটাস আপনার রিলেশন একটি নতুন লেভেলে চলে যাবে।

তো চলুন জানার চেষ্টা করে টিপস গুলো কি কিঃ-

অপরিচিত লোকের সাথে স্মার্টভাবে কথা বলার উপায়


নাম্বার ওয়ানঃ-নিজেকে ইন্টারেস্টেড করো।

মনে করুন আপনি আপনার কোন ফ্রেন্ড কে বললেন,আমি আজ একটা শপিং মলে গেছিলাম আর সে আপনাকে বললো ও ওই মলে আমিও দুদিন আগে গেছিলাম। আমি একটা নতুন জিনিস নিয়ে এসেছি আর সে তার কথা বলা শুরু করলো। তাহলে সে আপনার কাছে ইন্টারেস্টিং লাগবে না। কারণ সে তার কথা বলতে ব্যস্ত। সে আপনার কথায় কোন ইন্টারেস্টেড নেই। কিন্তু ওই বন্ধুটি যদি আপনাকে এরকম কি কি করলি? মলে গিয়ে আমাকে বল তখন আপনার তার সাথে কথা বলতে ইন্টারেস্ট লাগবে।

কারণ সে আপনার প্রতি ইন্টারেস্টেড আছে। যখনই আপনার কথায় কারো ইন্টারেস্ট থাকে তখন আপনার ভালো লাগে একিভাবে আপনি যদি অন্যের কথায় ইন্টারেস্ট এর সাথে শুনেন তাহলে সবাই আপনার কাছে আসবে। যে কারো কথা ইন্টারেস্ট এর সাথে শুনা এবং তার কথামতো তাকে প্রশ্ন করা। তার কথাগুলো মন দিয়ে বোঝার চেষ্টা করা। এগুলি অন্যজনের ভালো লাগবে। এবং এটি আপনাকে তার আরো কাছে নিয়ে যাবে। যতক্ষণ আমরা অন্যদের কথা না শুনবো ততক্ষণ আমরা অন্যকে বুঝতে পারব না।আর যতক্ষণ আমরা অন্যকে বুঝতে পারব না ততক্ষণ আমরা আমাদের কথা তাদের বোঝাতে পারব না।

 তাই নিজের কথা অন্যকে বোঝানোর জন্য তাকে বোঝা খুবই জরুরী আর তাকে বুঝতে গেলে তাকে শুনো। তাই বন্ধুরা যখনই আপনি কারো সঙ্গে কথা বলবে তার কথা ইন্টারেস্টেড এর সাথে শুনুন।

নাম্বার টুঃ- বডি ল্যাঙ্গুয়েজ 

বন্ধুরা যখন আপনি কারো সাথে কথা বলেন তখন আপনার মুখের সাথে সাথে আপনার শরীরে অনেক কথা বলে। অনেক সময় কথা তো ঠিক থাকে কিন্তু যদি বডি ল্যাঙ্গুয়েজ ঠিক না থাকে তাহলে আপনার মধ্যে কনফিডেন্সের অভাব দেখা যায়। তাই কথা বলার সময় নিজের একটি হালকা স্মাইল রাখুন। এবং কথা বলার সময় সামনের জনের চোখে চোখ রেখে কথা বলবে।সব সময় চোখের দিকে তাকিয়ে থাকবেন না তবে বেশিরভাগ সময় চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন।

নাম্বার ত্রিঃ- অন্যের ফিলিংসকে বোঝুন।

মনে করুন আপনার বন্ধু বললো তার দশ হাজার টাকা হারিয়ে গেছে।আপনি থাকে বললেন শুনে খুব খারাপ লাগলো।কি আর করবে যা হয়ে গেচে তা তো আর ফিরবে না।আপনি নিশ্চয়ই এমনটাই বলেন।

কিন্তু আপনি এটা না বলে নিজেকে তার জায়গায় রেখে ভাবুন।ঐ দশ হাজার টাকা যদি আপনার হতো।তাহলে আপনার কি রকম মনে হতো।এটি ভাবার পর আপনার মন থেকে যে আন্সারটি বেরিয়ে আসবে সেটি থাকে বলুন।তাই যখনি কেউ কোন সমস্যার কথা বলবে। তারা কথা শুনে বুঝে তার জায়গায় নিজেকে রেখে আন্সার দিবেন।

নাম্ভার ফোরঃ-কথা বলার আওয়াজ। 

বন্ধুরা যখন আপনার কথার আওয়াজে একটু ভিন্ন রকম ভাব থাকবে তখন সামনের জন আপনার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনবে। আর যদি আপনি সব সময় একি আওয়াজে কথা বলেন তাহলে সামনের জন বোরিং ফিল করবে। তাই কথা বলার সময় খেয়াল রাখুন কোন কথা গুলি জোরে বলতে হবে।কোন কথাগুলো শান্তভাবে বলতে হবে।মনে রাখবেন ভয়েস হলো সেই জিনিষ যার ফলে আপনার প্রতিটি শব্দ এক্সপ্রেসনে পরিবর্তন হবে।

মনে করুন আপনার কাছে কেউ কোন প্রোডাক্ট বিক্রি করতে এসেছে।আর আপনি সেটি নিতে চান না।তাহলে থাকে আপনি দুই রকম ভাবে মানা করতে পারেন।
প্রথমত আপনি থাকে জোর গলায় বলতে পারেন আমার দরকার নেই আমি দেবো না।
অথবা বলতে পারেন সরি আমার এটার এখন প্রয়োজন নেই।

তো বন্ধুরা জিবনের অর্ধেক সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে যদি লোক একে অপরের সাথে কথা বলা শিখে যায়।
এই ছিলো কিছু টিপস যা আপনাকে অন্যের সাথে কথা বলার সময় খেয়াল রাখতে হবে।
ভালো থাকুন

Post a Comment

0 Comments