ভালবাসা বাড়ানোর ৩ টি উপায় | ভালবাসা বৃদ্ধির উপায়

ভালবাসা বাড়ানোর ৩ টি উপায়

আজ আমি আপনাদের এমন ৩ টি কথা বলবো, যা আপনি যদি আপনার ভালবাসার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ভালবাসা ৩০০%  বেড়ে যাবে।
তাই এই পোস্টটি লাস্ট পর্যন্ত অবশ্যই পড়বেন।

সবার প্রথমে একটা কথা বলে রাখি এটি কোন ম্যাজিক নয়, এখানে বলা প্রত্যেকটা কথা কে আপনাকে বুঝতে হবে।
ভালবাসা বাড়ানোর ৩ টি উপায় | ভালবাসা বৃদ্ধির উপায়

ভালবাসা বাড়ানোর ৩ টি উপায়ঃ-


নাম্বার ওয়ান আমাকে নেট পারসন হতে হবে।

এখন হয়তো আপনি ভাবছেন আমরা তো জানি সব কিছু সময় মতো করা দরকার। বরং যেকোনো কাজ সময়ের আগে হওয়া ভালো। কিন্তু এখানে আমি আপনাদের বলছি আপনি লেট পারসন হন।কারন ভালোবাসার ক্ষেত্রে এটা একটু আলাদা। ভালোবাসাতে যদি আপনি একটু লেট পারসন হন তাহলে আপনার ভালবাসা বাড়বে।

যেমন মনে করুন আপনারা মাঝে মাঝে কোন জায়গায় দেখা করেন ,আর এখানে যদি আপনি একটু লেট করেম তাহলে কি হবে ওই যে সময়টা আপনি লেট করবেন অর্থাৎ আপনার পার্টনার আপনার জন্য যখন ওয়েট করবে, তখন তার মনে হাজার প্রশ্ন আসবে যে আপনি কেন এত লেট করছেন? আপনি তো আগে কখনো এমনটি করেননি ,আপনি নিজেকে কি মনে করেন, আপনি তার কোন কেয়ার করেন না অর্থাৎ সে অনেক রেগে থাকবে । আর আপনি তার মনে নয় তার মাথাটা চলে যাবেন ।আর যা আমাদের ব্রেনে চলে যায় সেটা আমরা সহজে ভুলতে পারি না ।এরপর আপনি তার কাছে কোনো সারপ্রাইজ নিয়ে সামনে যান তাহলে তার রাগ কমে যাবে আর ভালোবাসা বাড়বে। এবং এখন আপনি তার মনে ও ব্রেনে দুই জায়গাতেই থাকবেন। এটি আপনি মাঝে মাঝে করতে পারেন এটা আপনার ভালোবাসাকে বাড়িয়ে দেবে। আর যদি এটা রোজ করেন তাহলে আপনার ভালবাসা বাড়ার পরিবর্তে কমতে পারে কারণ যখন আপনি এটা রোজ রোজ করবে তখন সে বুঝতে পারবে ।তাই সেও তখন ওয়েট না করে সেও দেরিতে আসা শুরু করবে। তাই এটা মাঝে মাঝে করুন।

নাম্বার টু ধৈর্য্য রাখা শিখুন

 ধৈর্য যে কোন সম্পর্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ।এটা আপনাদেরকে উদাহরণ দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছি।যখনই আপনাদের রিলেশন এর মাঝে কোন ঝগড়া হয়। আর যার মধ্যে ধৈর্য আছে সে তো শান্ত থাকবে ।কিন্তু যার মধ্যে ধৈর্য নেই সে তো পাগল হয়ে যাবে, ভুলভাল কথা বলবে। খারাপ ব্যবহার করবে, এখানে এটা হয় কারন তার মধ্যে কোন ধৈর্য থাকে না ।আর এই ধৈর্য্য না থাকার কারণেই তর্ক সৃষ্টি হয়। যেমন মনে করুন আপনি আপনার পার্টনারের সঙ্গে ফোনে কথা বলছেন,আর কোন একটা কারনে সামনের জন কলটা কেঠে দিছে। কিন্তু আপনি কি করেন সে কল কাটার সাথে সাথে আপনি থাকে বার বার কল করেন।এস এম এস করেন। কিন্তু সে কোন রেসপন্স করে না।বা আপনার কল কেটে দেয়।  কিন্তু এখানে যদি আপনি একটু ধৈর্য্য রাখেন, যে ঠিক আছে সে কল কেটেছে আমি তাকে একবার কল করবো ,একটা এসএমএস করব, এরপরেও যদি সে কোন রেসপন্স না করে তাহলে আমি আর তাকে এখন কল করব না।

কারণ সে নিজেই আমাকে কল করবে ।এতে কি হবে ভবিষ্যতে সে কখনোই আপনার কল এই ভাবে কাটবে না। কারণ তার মনে হবে যে আগেও সে এই ভুলটা করেছিল। আর তারপর আপনি তাকে কল করেন নি ।তাই এই ধৈর্য আপনার অনেক কাজে আসবে।

নাম্ভার থ্রি একি কাজ বার বার করবেন না

আমি বলতে চাইছি আপনি আপনার পার্টনার এর জন্য যে সমস্ত কাজ করেন, সে গুলো যদি কন্টিনিউ করতেই থাকেন তাহলে আপনাদের রিলেশন টা বোরিং হয়ে যাবে।কারন কথায় আছে না ততক্ষন মানুষ ছায়ার মূল্য দেবে না যতক্ষন না সে রোদে থাকবে।

তাই আপনাকে রোদ এবংং ছায়া দুটুকে পাল্টাতেক সাথে নিয়ে চলতে হবে।আপনি থাকে কন্টিনিউ ছায়া দিচ্ছেন হঠাৎ করে একটু রোদ দিন।তার পর আবার থাকে একটু ছায়া দিন।তাহলে সে আপনার মূল্যকে বুঝবে।

তো বন্ধুরা এই ছিলো ৩ টি বিষয় যদি আপনি ভালো ভাবে এই গুলোকে ব্যবহার করেন তাহলে আমি বলছি তাহলে আপনার ভালবাসা ৩০০% নয় ৩০০০% বেরে যাবে।তো বন্ধুরা পোস্টটি কেমন লাগলো কমেন্ট অবশ্য জানাবেন।

Post a Comment

0 Comments