ইফতার রেসিপি ২০২০ | বাংলা রান্নার রেসিপি | নাস্তার রেসিপি

ইফতার রেসিপি ২০২০ | বাংলা রান্নার রেসিপি | নাস্তার রেসিপি

আসছালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠক। আজকে আমরা তোমাদের জন্য ইফতারের রেসিপি ২০২০ নিয়ে হাজির হলাম। তোমাদের আজকে কয়েকটি ইফতারের রেসিপি বানানো শিখাবো। আসা করি তোমাদের ভালো লাগবে।তাহলে চলুন ইফতারের রেসিপি গুলো দেখে নেই        
প্রন বল রেফিপি
উপকরণ: পাউরুটি কুচি ৬ কাপ, চিংড়ি বাটা আধা কাপ, চিংড়ি কুচি সিকি কাপ, কাঁচা মরিচ বাটা ১ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল-চামচ, সয়াসস ২ টেবিল-চামচ, সাদা গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, ডিম ১টা। লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালি: পাউরুটির পাশের অংশ বাদ দিয়ে ছোট কিউব করে কেটে নিতে হবে। পাউরুটি বাদে বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মাখিয়ে নিয়ে এবার পাউরুটি দিয়ে মাখিয়ে মোয়ার মতো করে বানিয়ে ২৫-৩০ মিনিট ফ্রিজে রাখতে হবে। তেল গরম করে প্রন টোস্ট বল গরম ডুবো তেলে সোনালি রং করে ভাজতে হবে। টমেটো সস অথবা চিলি সস দিয়ে স্যুপের সঙ্গে পরিবেশ করতে হবে।

ইফতার রেসিপি ২০২০ | বাংলা রান্নার রেসিপি | নাস্তার রেসিপি |ফালুদা রেফিপি 


 ফালুদা বানানো রেসিপি 
উপকরণ : ভ্যানিলা আইসক্রিম ২ কাপ, চিনি আধাকাপ, পানি ১ কাপ, গুঁড়ো দুধ ২ কাপ, এসেন্স কয়েক ফোঁটা, নুডলস সেদ্ধ ১ কাপ, মাওয়া ২ টেবিল-চামচ, সাবুদানা সেদ্ধ আধাকাপ, চায়না গ্রাস ১ মুঠো, গোলাপজল আধা চা-চামচ, ফলের শরবত পরিমাণমতো, পেস্তাকুচি ২ টেবিল-চামচ, জেলো পাউডার ১ প্যাকেট, আপেল, কলা ও আঙুর ২ কাপ।

প্রণালি : পানি, দুধ ও চিনি একসঙ্গে জ্বাল দিয়ে ফ্রিজে ঠান্ডা করতে হবে।নুডলস সেদ্ধ করে ধুয়ে পানিতে ভিজিয়ে ফ্রিজে রাখতে হবে ২ টেবিল-চামচ চিনি দিয়ে। ইচ্ছা করলে আধা ফোঁটা লাল রং ব্যবহার করা যাবে। এতে নুডলসগুলো গোলাপি হবে।
জেলো পাউডার গোলানো: ২ কাপ পানিতে চায়না গ্রাস জ্বাল দিয়ে যখন গলে যাবে তখন জেলো পাউডার দিয়ে গুলিয়ে নিয়ে একটি ট্রেতে ঢেলে ঠান্ডা করতে হবে। যখন জমে যাবে তখন কিউব করে কেটে নিতে হবে। এভাবে ৩ রকম ফ্লেবারের জেলোর কিউব কাটতে হবে। সাজানো : প্রথমে পাত্রে নুডলস পরে সাবদানা, জেলো কিউব, ফল, ঘন দুধ, আবার জেলো কিউব ও মাওয়া দিতে হবে। এবার আইসক্রিমের স্কুপ দিয়ে ওপরে জেলো কিউব ও শরবত দিয়ে পরিবেশন।

ইফতার রেসিপি ২০২০ | বাংলা রান্নার রেসিপি | নাস্তার রেসিপি |দই ছানা রেফিপি 

দই ছানা রেসিপি 
উপকরণ : ছোলা ১ কাপ, টকদই আধা কেজি, ভুজিয়া আধা কাপ, চাট মসলা ২ চা-চামচ, শুকনা মরিচ টালাগুঁড়া ১ চা-চামচ, বিট লবণ ১ চা-চামচ, চিনি ২ চা-চামচ বা পরিমাণমতো, পুদিনাপাতা ৪ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজকুচি ৪ টেবিল-চামচ, কাঁচা মরিচকুচি ১ চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ২ টেবিল-চামচ, শসাকুচি পৌনে এক কাপ, টমেটোকুচি পৌনে এক কাপ।

প্রণালি : ছোলা ৫-৬ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে ডুবো পানিতে হলুদ ও লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে। তেল গরম করে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ দিয়ে ভেজে ছোলা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে ১ চা-চামচ চাট মসলা দিয়ে দিতে হবে। পরিবেশন পাত্রে এটি ঢেলে ঠান্ডা করতে হবে। দইয়ের সঙ্গে বাকি চাট মসলা, ২ টেবিল-চামচ পুদিনাপাতা, বিট লবণ, চিনি, লবণ, মরিচগুঁড়া দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে ছোলার ওপর ঢেলে দিতে হবে। তার ওপর শসাকুচি, টমেটোকুচি, পুদিনাপাতা, কাঁচা মরিচকুচি ও ভুজিয়া পর্যায়ক্রমে ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে।

ইফতার রেসিপি ২০২০ | বাংলা রান্নার রেসিপি | নাস্তার রেসিপি |চটপটি রেফিপি 


চটপটি রেসিপি  
উপকরণমটর ৫০০ গ্রাম, আলু ২৫০ গ্রাম, ডিম ২টি, তেঁতুলের ক্বাথ আধা কাপ, চিনি আধা কাপ, সিরকা ৩ টেবিল চামচ, শসা ৫০০ গ্রাম, টেমেটো ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাঁচা মরিচ স্বাদমতো, ধনেপাতা ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, খাবার সোডা ১ চা চামচ, টালা শুকনো মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, শুকনা মরিচ ৮টি, জিরা ১ টেবিল চামচ, ধনে ১ টেবিল চামচ, মেথি ১ চা চামচ, কালো গোলমরিচ ৮টি, কালিজিরা ১ চা চামচ, মৌরি ২ চা চামচ, রাঁধুনি ১ টেবিল চামচ, লবঙ্গ ৫টি, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, বিট লবণ গুঁড়া দেড় চা চামচ।
যেভাবে তৈরি করবেন :
১. মটর বেছে ধুয়ে ১ চা চামচ খাবার সোডা দিয়ে ৮ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন।
২. ভিজানো মটর ভালো করে ধুয়ে মটরের চার গুণ পানি দিয়ে সিদ্ধ করুন।
৩. ডিম ও আলু সিদ্ধ করে ঝুরি করুন।
৪. সব মসলা টেলে গুঁড়া করে বিট লবণ গুঁড়া মিশিয়ে নিন।
৫. তেঁতুলের ক্বাথ সঙ্গে আধা কাপ চিনি, স্বাদমতো লবণ, আধা চা চামচ মরিচের গুঁড়া, ১ চা চামচ ভাজা জিরার গুঁড়া, ১ টেবিল চামচ তেল ও সামান্য পানি দিয়ে জ্বাল করুন।
৬. সব একসঙ্গে মেখে সাজিয়ে ওপরে মসলা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

Tag:বিভিন্ন নাস্তার আইটেম,বাচ্চাদের নাস্তা রেসিপি,সকালের খাবার রেসিপি,পাউরুটি দিয়ে নাস্তা রেসিপি,রান্নার রেসিপি নাস্তা,ময়দা দিয়ে নাস্তা,নতুন নাস্তার রেসিপি,গরমের রেসিপি,বিভিন্ন খাবারের রেসিপি,বিভিন্ন প্রকার রেসিপি,রেসিপি রেসিপি

Post a comment

0 Comments