মানুষ কেন একে অন্যের সমালোচনা করে

মানুষ কেন একে অন্যের সমালোচনা করে আসুন জেনে নেই আসল রহস্য 

মানুষ কেন একে অন্যের সমালোচনা করে আসুন জেনে নেই আসল রহস্য

অনেকে বলে আমি সবার ভালো করি। আর আমি চেষ্টা করি সবাইকে খুশি রাখার। কেউ আমার জন্য কষ্ট না পায়। কিন্তু যত ভালই আমি করি তার পরেও লোক আমার বিরুদ্ধে কথা বলে। যতই কারো ভালো করে তার পরেও সে আমার ক্ষতি করে। যতই আমি কাউকে মানানোর চেষ্টা করি আবারো সে আমার উপর রাগ করে। বুঝতেই পারি না কি করব। তাহলে আপনি একটা কথা মনে রাখুন, চাইলে লিখে রাখুন, আপনি যতই চেষ্টা করেন না কেন আপনি সবাইকে খুশি করতে পারবেন না। তার কারণ এটা নয় যে আপনি ভুল। তার কারণ হলো পৃথিবীতে আলাদা আলাদা লোক আছে। সবার চিন্তা আলাদা আলাদা। একই ঘরে জন্ম নেওয়া দুই ভাইয়ের চিন্তা আলাদা আলাদা হয়। এটা গুরুত্বপূর্ণ নয় যে আপনি যা ভালো মনে করেন, অন্য লোক এসে দেখে ভালই মনে করবে, আপনি কারও জন্য ভালো করবেন ও হতে পারে সামনের জন ভাববে থাকে দেখানোর জন্য করছেন। কখনো ভুলেও চিন্তা করবেন না যে আমি সবাইকে খুশিতে রাখবো। 

অনেক লোক তো বলে অন্যের কথায় আমার খুব কষ্ট হয়। কারণ আমি কারো কোন ক্ষতি করি না। বিনা কারণে এরা আমাকে খারাপ বলে। বা বিনা কারণে এরা অপমান করে। তাহলে আর একটি কথা মনে রাখুন কেউ বলবে এটা ভালো, কেউ বলবে ওটা ভালো, কেউ বলবে এই কাজটি খারাপ, তো কেউ বলবে ঐ কাজটি খারাপ, তখন হেসে উত্তর দিন এটাই ঠিক। সবার সাথে তর্ক করার কোন প্রয়োজন নেই। লোকের কথায় নিজের ওপর এর প্রভাব পড়তে দেবেন না। এমনটা হতেই পারে না যে আপনি সবার কাছে পছন্দের হবেন। তাই এই চেষ্টাটি ছেরে দিন। আপনি সেটা করুন যা সঠিক, আপনি সেটা করুন যা ভালো। যা আপনার জীবনের জন্য ভালো, যা আপনার ফ্যামিলির জন্য ভালো। আর যাতে কারো কোন ক্ষতি না হবে। শুধু এটা আপনার হাতে আছে। তাই আপনি শুধু এটাকেই কন্ট্রোল করুন। পৃথিবী কে খুশি করতে গেলে আপনি নিজেই দুঃখী হয়ে পড়বেন।

আপনারা পড়তেছেন Blognet24.com মানুষ কেন একে অন্যের সমালোচনা করে


একটি গল্প বলি একটি ছেলে ও তার বাবা একটি গাধায় চড়ে কোথাও যাচ্ছিলো। তখন সেই রাস্তা দিয়ে যত লোক যাচ্ছিল তারা তাদের দেখে বলে যে কত নির্দয় এই দুইজন বাবা ও ছেলে। একটি দুর্বল গাধার উপরে দুজনে বসে আছে।আজ কাল কারো মনে কোন দয়া মায়া নেই। লোকের এই কথা শুনে ছেলেটি বলে বাবা আপনি গাধার উপরে বসুন আমি হেঁটে যাচ্ছি। ছেলেটির বাবা বলে ঠিক আছে। কিছুক্ষণ পর ওই রাস্তা দিয়ে যে লোক গুলো যাচ্ছিল তারা বলে দেখো কত নির্দয় বাবা, ছেলেকে হাঁটিয়ে হাঁটিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আর নিজে মজা করে গাধার উপরে বসে আছে। এরপর বাবা টি তার ছেলেকে বলে তুমি গাধার উপর বস, আমি হেঁটে যাচ্ছি। ছেলেটি বলে ঠিক আছে আবার কিছুক্ষণ পর ওই রাস্তা দিয়ে যারা যাচ্ছিল, তারা বলে দেখো কি দিনকাল আসলো ঘোর কলিযুগ ছেলে মজাতে গাধার উপর বসে মজা মরে যাচ্ছে।আর বাবাকে হাটিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।এটাই হলো আজকাল ছেলেদের সংস্কার। গুরুজনদের একটু সম্মান ও করতে জানে না।এর পর বাবা ও ছেলেটি ভাবে দুজনই হেঠে যাওয়া যাক।তারা গাধাটিকে দুজনে হেটে যেতে থাকে।আর ভাবে এবার তো কেউ কিছু বলতে পারবে না।না আমি গাধার উপর আছি না আমার ছেলে। 

কিন্তু তারপর ও অখানে যে সমস্ত লোকগুলি যাচ্ছিলো তারা মজা করে আর এদের দেখে হেসে হেসে বলে দেখ কতটা বোকা এই দুজন এদের কাছে গাধা আছে তাতে ছরে এরা যেতে পারে। কিন্তু দুজন এতই বোকা গাধা থাকা সত্যেহ পায়ে হেঠে যাচ্ছে।এর পর দুজন বুঝতে পারে আমরা যাই কিছু করি না কেনো লোক সেখানে কিছু না কিছু ভূল বের করবেই।তাই আপনি ও এই কথাকে বুঝে নিন আপনি ও যত ভালই কাজ করুন না কেন আপনি এটা কখনো আসা করবেন না, যে সবাই খুশি হবে।সবাই আপনার প্রশংসা করবে।হতে পারে আপনি যে মানুষটির ভালো করবেন সেই আপনার শত্রু হয়ে যাবে।সে আপনার উপর রাগ করবে।কারন সবার চিন্তা ভাবনা আলাদা আলদা হয়ে থাকে।আপনি ভাবতেই পারবেন না লোক কি কি ভাবে।লোককে তো আপনি পরিবর্তন  করতে পারবেন না।কিন্তু হে আপনি নিজেকে পরিবর্তন কর‍তে পারবেন।আপনি এটা স্বিকার করুন আপনি যতই চেষ্টা করেন সবাইকে খুশি কর‍তে পারবেন না।তাই বৃথা চেষ্টা বন্ধ করুন।ভালো কাজ করতে থাকুন।যারা ভালো লোক তারা অটোমেটিক প্রশংসা করবে।

তো বন্ধুরা আজ এই পর্যন্ত। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন।আর সাথেই থাকুন blognet24 এর।   

Post a Comment

0 Comments