কিভাবে আপনার মনকে কন্ট্রোল রাখবেন

কিভাবে আপনার মনকে কন্ট্রোল রাখবেন

কিভাবে আপনার মনকে কন্ট্রোল রাখবেন
আমাদের ব্রেন, আমাদের জীবনের সমস্ত কাজের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা  হয়তো আপনাদের বলতে হবে না। আপনি আজ এখন যেখানে আছেন যে অবস্থায় আছেন এই সব কিছুর জন্য আপনার মস্তিষ্ক দায়ী। এই মস্তিষ্ককে কিভাবে আমরা কন্ট্রোল করবো, এই নিয়ে অনেকে অনেক গবেষণা করেছেন। অনেক বইও লেখা হয়েছে এর উপরে। আমাদের মস্তিষ্ক কোন ইলেকট্রিক বাল্ব নয়। যে আপনি সুইচ অন করলে এ কাজ করা শুরু করবে। আর অফ করলেই এ কাজ করা বন্ধ করে দেবে।এটা এইভাবে কাজ করে না। 

আমাদের শরীরের প্রত্যেকটি অঙ্গের আলাদা আলাদা কাজ আছে, যেমন কানের কাজগুলো সোনা, জিভের কাজ হলো স্বাদ নেওয়া, চোখের কাজ হলো দেখা, একইভাবে আমাদের ব্রেনের কাজ হলো চিন্তা করা। যেমন আম চক্ষে দেখা থেকে আটকাতে পারব না। যেমন জিবকে স্বাদ নেওয়ার হাত থেকে আটকাতে পারব না। বা আমাদের হৃদপিণ্ডকে থামাতে পারবো না। একিভাবে আমরা আমাদের ব্রেনের চিন্তা করা কেউ আটকাতে পারব না। আপনার ব্রেন বাল্বের মত সবসময় জলতে থাকে এর কোন সুইচ হয় না। যার দ্বারা আপনি একে অন অফ করবেন। আমরা সবাই জানি আমাদের ব্রেনের কতটা ক্ষমতা। আপনার ব্রেন একটি সুপার কম্পিউটার থেকে অনেক গুণ বেশি শক্তিশালী। আর তার থেকেও অনেক শক্তিশালী হলেন আপনি। কিন্তু আপনার ব্রেন আপনাকে বেটার রেজাল্ট তখনই দিতে পারবে যখন সে স্থির থাকবে।

যে কোন একটি কাজ এর উপরে Focus করতে পারবে।আপনি পেয়ারা বীজ তো দেখেছেন, আমের বীজ, আপেলের বীজ তো দেখে থাকবেন, ছোট ছোট এই বীজগুলো একদিন কত বড় বড় গাছ হয়ে যায়। কখনো কি ভেবে দেখেছেন কিভাবে। এই ছোট ছোট বীজগুলো তখনই গাছ হতে পারে যখন বীজগুলো মাটিতে দীর্ঘদিন স্থির ভাবে থাকে। আর যে বীজগুলো হাওয়ার সাথে আজ এখানে কাল ওখানে উড়ে যায়। সে কখনোই গাছ হতে পারবে না। সাইন্স আমাদের বলে 60 হাজারেরও বেশি চিন্তা রোজ আমাদের ব্রেনে আসে। এর মধ্যে 9 শতাংশ থেকে বেশি চিন্তা রিপিডের চিন্তা হয়ে থাকে 95% চিন্তা এমন হয় যা গত কাল এসেছিল বা তার আগেও এসেছিল। আর এই সমস্ত চিন্তার মধ্যে 80% পার্সেন্ট চিন্তা নেগেটিভ হয়ে থাকে.।আমাদের চিন্তা প্রতি ২ সেকেন্ড অন্তর পরিবর্তন হতে থাকে। আর আমাদের প্রতিটি চিন্তা ওই এক একটি বীজের মত। আর আপনি যতক্ষন যে কোন একটি চিন্তাকে স্থায়ী না করবেন। ততক্ষণ চিন্তা কখনো সফল হতে পারবে না। একবার ভাবুন তো যখন অ্যাডিশন বাল্ব তৈরি করেছিলেন তখন যদি উনার ব্রেন প্রতি ২ সেকেন্ড অন্তর তার চিন্তাকে পরিবর্তন করতো, তাহলে সে কি বাল্প আবিস্কার করতে পারতো।

আপনি আপনার গ্রামের রাস্তায় সার্কাস তো দেখেছেন, সেখানে একটি ছোট্ট বাচ্চা উচুতে রাখা পাতলা একটি দড়ির উপর হাটতে থাকে,সে এটা  কিভাবে করে? কারণ যখন সেটি প্র্যাকটিস করেছে সে সম্পূর্ণ মনোযোগ এখানেই দিয়েছে।আর তখন তার ব্রেন ও শরিরে স্থির ছিলো।আর এই একি চিন্তা একি কাজ সে বার বার প্রেক্টিস করছে।যার ফলে সে সহজে ধরির উপর হাঠতে পারে।তাই আপনি ও যদি আপনার ব্রেনকে স্থির করতে চান যে কোন একটি কাজে নিজের মনোযোগকে বারাতে চান, তাহলে আপনাকে ও প্রতিদিন প্রাক্টিস করতে হবে।
যখন আপনি পড়াশুনা করেন তখন আপনার মনে একের পর চিন্তা আসতে থাকে।আর আপনি কিছুক্ষন পর ঐ চিন্তার মধ্যে হারিয়ে যান।তাই আপনার যে চিন্তা আপনার যে লক্ষ তার উপর আপনাকে Focus করতে হবে।

যখন আপনি Focus করবেন তখন আপনার নে নেগেটিভ  চিন্তা আসবে তখন আপনার মাইন্ডকে আগের চিন্তায় দ্রুত ফিরিয়ে আনতে হবে।আর আপনি যদি এটার অভ্যাস করেন তাহলে ধিরে ধিরে দীর্ঘ সময় ধরে একটি চিন্তাতে focus করতে পারবেন।
একটি চিন্তাকে বেচে দিন, আর সমস্ত চিন্তাকে দূরে রাখুন।
আর ঐ চিন্তাকে জীবন তৈরি করুন।তাহলে আপনি সফলতা পাবেন।তো বন্ধুরা আজকের টপিক এই পর্যন্ত।
সবাই ভালো থাকুন,আর সাথেই থাকুন Blognet24 এর।

Post a Comment

0 Comments