রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব

রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব  

রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব

গল্পঃ- ব্লগনেট২৪.কম
লেখকঃ-Blognet24.com

আরিয়ান এবং তামান্না একি কলেজে পড়ে। তারা খুব ভালো বন্ধু। এটা কলেজের সবাই জানে। কলেজে আসা যাওয়া সব কিছু এক সাথে। একে অপরকে ছাড়া এক মূহুর্ত থাকে না। আরিয়ান যখন বাস্কেট বল খেলা। তামান্না উপস্থিত না থাকলে সে যেনো খেলতেই পারে না। এই রকম তাদের বন্ধুত্ব চলতেছে।

এরি মধ্যে আরিয়ানের একটি মেয়েকে ভালো লেখে যায়।আরিয়ান মেয়েটি দেখার জন্য রেগুলার মহিলা কলেজে ছুটে যায়। কিন্তু মেয়েটি পাত্তা দেয় না। আরিয়ান ও হার মানে নাই। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেম হয়ে যায়।বিষয়টা তামান্না ও জানে। আরিয়ানকে সব কিছু তামান্না শিখিয়ে দেয়।

এদিকে তামান্নার আগে থেকে তার মা বাবা অন্য একটি ছেলের সাথে বিয়ে ঠিক করে রেখেছিলো। হঠাৎ করে ছেলেটি তামান্নার সাথে দেখে করে এসে আংটি বদল এর দিন ঠিক করে ফেলে। কেননা বাহিরে ব্যবসার জন্য যেতে হবে তাই দ্রুত বিয়ের কাজটা শেষ করতে হবে।
যেই ছেলেটার সাথে তামান্নার বিয়ে ঠিক হয়েছে ঐ ছেলেদেটার একটা বন্ধু ছিলো সে তামান্নাকে আংটি বদলের দিন দেখেছে। সে দিন থেকে তামান্নার প্রতি অর খারাপ নজর লেগে আছে। কি করে সে তামান্নাকে বিচানায় নিতে  পারবে। এদিকে তামান্না ও আরিয়ান এর ফ্রেন্ডশিপ ভালোই চলতেছে। কারো রিলেশন এ কারো কোন সমস্যা হচ্ছে না।

রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব  

হঠাৎ একদিন একটি পার্টিতে তামান্না, আরিয়ান ও তার গার্লফ্রেন্ড গিয়েছে। সেখানে তামান্নার হবু বরের বন্ধু ও গিয়েছে। পার্টিতে আরিয়ান ও তার গার্লফ্রেন্ড একে অন্যকে নিয়ে ব্যস্ত। এদিকে তামান্না পার্টিতে একা হয়ে আছে। তাই সে বাহিরে এসে দারিয়ে ছিল।

এই সুযোগে তামান্নার হবু বরের বন্ধু তামান্নাকে জোর করে বিচানায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে ফেলে। এদিকে আরিয়ান তামান্নাকে দেখতে না পেয়ে খুজা খুজি করতে গিয়ে।তামান্নাকে এই অবস্তায় দেখে রাগে হবু বরের বন্ধুকে ধরতে যায়। সে পালিয়ে যেতে থাকে। তার পিচু পিচু আরিয়ান ও যেতে থাকে। এক পর্যাতে দৌড়াতে গিয়ে তামান্নার হবু বর বন্ধু এক গাড়িতে ধাক্কা খেয়ে এক্সিডেন্ট করে মারা যায়।

এদিকে তামান্নাকে শান্তনা দিতে আরিয়ান ব্যস্ত। কি করবে তুমি তো ইচ্ছা করে করো নাই। এই সব ভুলে গিয়ে আগের মত হয়ে যাও।কিন্তু এই সব তো ভূলার বিষয় নয়।তাই তামান্না কিছুতেই নিজেকে শান্তনা দিতে পারতেছে না।

রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব  

তামান্না আগের মত খাওয়া দাওয়া করে না। তার মা বাবা আরিয়ানকে ডেকে বলে অর কি হয়েছে। আরিয়ান বলে না কিছু হয় নি। বিষয়টা শুধু আরিয়া ও তামান্না জানে।তামান্না কলেজে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এদিকে আরিয়ান তামান্নাকে সময় দিতে গিয়ে গার্লফ্রেন্ড এর সাথে প্রায় ব্রেকআপ হবার মত অবস্তা। কি করবে আরিয়ান তামান্নাকে একা ফেলেতো এই অবস্তায় যেতে পারবে না।


তামান্নাকে কোন রকম শান্তনা দিতে পারে না আরয়ান।
আরিয়ান এর ভয় হয় যদি তামান্না আত্নহত্যা করে ফেলে।তাই তাকে এক মূহুর্ত একা থাকতে দেয় না।
অন্য দিকে যত দিন যাচ্ছে সমস্যা বড় হচ্ছে। হঠাৎ একদিন তামান্না অসুস্থ হয়ে পড়ে।তাই থাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায় আরিয়ান। ডাক্তার পরিক্ষা করে দেখে তামান্না প্রেগন্যান্ট। বিষয়টা তামান্নার মা বাবা শুনতে পায়। তারা আরিয়ানকে ডেকে বলে তোমায় ছেলের মত মনে করতাম আর তুমি আমার মেয়ের জিবনটা নস্ট করে দিলে।এই সময় তামান্নার হবু বর চলে আসে এবং বিষয়টা জানতে পারে। তামান্না এবং আরিয়ান বলে এটা তোমার বন্ধু করেছে। কিন্তু তাদের কথা কেউ মানতে রাজি নয়।তারা বলে ছেলেটা মারা গেছে আর তোমরা তার উপর অভিযোগ দিচ্ছ। তার পর তামান্নার সাথে বিয়ে ভেঙ্গে দিয়ে তারা চলে যায়।

তামান্নার বাবা বাচ্চাটাকে দুনিয়ায় আসতে দেবে না তাই সে অপারেশন করার জন্য ডাক্তারের কাছে যায়।
ডাক্তার বলে আপনার মেয়ে মারা যাবার ও সম্ভাবনা আছে। এই কথা তামান্নার মা শুনে কিছুতেই রাজি হন নি অপারেশন এর জন্য। বিষয়টা শুনে আরিয়ান ও ছুটে আসে হাসপাতালে। তামান্নার বা অপারেশন করাতে দেবে না তাই তামান্নাকে বাড়ি নিয়ে যায়।
অন্য দিকে কলজে সব জায়গায় তামান্না আর আরিয়ান এক অপবাদ ছরিয়ে পড়ে। সবাই মনে করতেছে আরিয়ান এই কাজ করেছে। তাই সব জায়গায় এখন বদনাম। 

রোমান্টিক ভালবাসার গল্প | তামান্না ও আরিয়ান এর বন্ধুত্ব  

এদিকে এই খবর শুনে আরিয়ান এর ব্রেকআপ হয়ে যায়।তাদের পাশে এখন কেউ নেই।তাই আরিয়ান ঠিক করলো তামান্নাকে বিয়ে করব ফেলবে। এছাড়া আর কোন রাস্তা নেই। তামান্নাকে বাচাতে আর মানুষের মুখ বন্ধ করতে হলে এ ছাড়া আর কোন উপায় নেই। এই কথা সে তামান্নাকে বললো কিন্তু তামান্না কিছুতেই রাজি হচ্ছিলো না। আরিয়ান থাকে অনেক রকম বুজাচ্ছে। যে সময় তার গার্লফ্রেন্ড তার পাশে তাকার কথা সে পাশে নেই। তামান্নার হবু বর ও পাশে নেই। তাই তাদের কথা আমাদের ভাবলে হবে না। দুঃখ্যের সময় সে পাশে থাকে না। সুখের সময় তাকে প্রয়োজন নেই।

শেষ পর্যন্ত তামান্না রাজি হয়ে গেলো তাদের আংটি বদলের আয়োজন করা হলো। এদিকে তামান্না আগের হবু বর তার বন্ধু সম্পর্কে সব জানতে পেরে তামান্নাকে আবার বিয়ে করতে রাজি রাজি যায়। কিন্তু তামান্না এখন আর রাজি নয়। সে বলে আমার কথায় তোমার বিশ্বাস নেই।আবার যদি কখনো কোন সমস্যা হয়।

এদিকে আরিয়ান তার আগের গার্লফ্রেন্ডকে ভূলতে পারতেছে। তামান্না এই বিষয়টা বুঝতে পেরেছে।
তাই সে সিদ্ধান্ত নিলো তার আগের হবু বরের সাথে বিয়ের নাটক করে আরিয়ান আর তার গার্লফ্রেন্ডকে মিলিয়ে দেবে। কিন্তু ভাগ্য বলে অন্যটা তার হবু বর বলে প্লিজ একবার সুযোগ দাও।তামান্না বলে লাখো মানুষের মাঝে যদি আমায় কেউ বুঝে সে হলো আরিয়ান। আর তারিয়ানকে যদি কেউ বুঝে সে হলো আমি। এই কথা বলতে না বলতে হটাৎ তার পেটের মধ্যে বাচ্চা হবার যন্ত্রণা শুরু হলো এই সময় আরিয়ান বাস্কেটবল খেলায় ছিলো হঠাৎ তামান্নার চিৎকার শুনে সে ছুটে এসে তামান্নাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

কিছুক্ষণের মধ্যে তামান্নার কন্যা সন্তান জন্ম হলো। সবাই অনেক খুশি ডাক্তার তামান্নার বরকে ডাক দেয়। সেই সময় তামান্নার হবু হর যেতে চায়। কিন্তু ডাক্তা বলে আপনি না আমি তামান্নার বরকে আসতে বলেছি এই কথা শুনে আরিয়ান তামান্নার কাছে ছুটে যায়। মেয়েকে খুলে নিয়ে আদর করে। আর সেখান থেকে শুরু হয় তামান্না আরিয়ান এর নতুন সংসার। আর রচনা হয় বন্ধুত্বের আরেকটি ইতিহাস।

Post a Comment

0 Comments